প্রায়শই যে প্রশ্নগুলো করা হয় (না)

এই যে, এখানে এসে পড়ার জন্যে ধন্যবাদ। একেবারেই ভাবি নি এদ্দুর এসে পড়বেন। তা কথাবার্তা শুরু করবার আগে এখানে কিছু প্রশ্ন লেখা রইলো, যেগুলো আদতে কেউই কখনও জিজ্ঞেস করে নি।

হুম, আরও একটা ওয়েবসাইট?

ওই আর কি। আজই আরও ৫ লক্ষ সাইট যোগ হয়ে গেলো ইন্টারনেটে, এটা তাদের মধ্যেই একটা। ওরা বলছে এখনই নাকি বিশ্ব জালে ১০০ কোটি সাইট আছে, যার মধ্যে ১০-১৫ % এই মুহূর্তে অ্যাক্টিভ। এইসব বড় বড় নাম্বার শুনলে ঘাবড়ে যাই, বুঝতেই পারছেন। বলা হয় নি, আপনি যে আমারটাকে ওয়েবসাইট উপাধি দিলেন তাই জন্যে ধন্যবাদ।

তা এই ভিড়ে আরও একটা যোগ করার যুক্তিটা কি?

আচ্ছা, আমি ব্যাপারটা নিয়ে ততটা ভেবেই দেখি নি। ফেসবুকে স্ট্যাটাস পোস্ট করতে করতে একঘেয়ে লাগে। ভাবলুম, নতুন কিছু চেষ্টা করে দেখা যাক। অন্তত এখনও অব্দি তো বেশ মজাই লাগছে ওয়েব ডিজাইনের নতুন নতুন ব্যাপার স্যাপার দেখে।

ঠিক আছে ঠিক আছে। ওসব যে কোনও ভদ্রস্ত লোকই চাইলে করতে পারে। আর এইসব ব্যাপারে বাচ্চারাই মজা পায়তা আপনার ধান্দাটা কি রকম শুনি?

কি নিয়ে? মনে হয় বুঝতে পারছি আপনার জিজ্ঞাস্য। দেখুন, এখানে একটা পয়সাও যে রোজগার করতে আসি নি বলাই বাহুল্য। আসলে যখন আমার আসল প্রফেশনে আসল কাজ করার আগে বসে বসে সময় নষ্ট করি, তখন নানা জিনিসপত্র মাথায় ঘুরঘুর করে। তো আগেই বলেছি সেসব ফেসবুকে দিতে একঘেয়ে লাগে। ব্যাপারটা বড্ডই কেমন কেমন যেন। ভাবলাম এরকম একটা নিরিবিলি জায়গায় সেগুলো লিখে রাখা যাবে, পরে সময় সুযোগ পেলে ঘেঁটে ঘুঁটে দেখা যাবে।

আপনি কি বলতে চাইছেন আপনি কোনও শ্রোতার আশা রাখেন না?

তাই বললাম বুঝি? কি জানি বাপু, নিজের মনে কোথায় কি প্রত্যাশা লুকিয়ে আছি নিজেই কি ছাই বুঝি! তবে আমি এটুকু নিশ্চিত, কিছু সময় অন্তত এ তল্লাটে আমার বন্ধু, বাবার একমাত্র সন্তান আর আমার শ্বশ্রূমাতার একমাত্র মেয়ের স্বামী ছাড়া আর কেউই পদার্পণ করবে না।

তাহলে একটা ডায়েরি রাখছেন না কেন?

এই প্রশ্নটার কি উত্তর দেবো জানি না। চুপিচুপি বলি, আমার নিজের সন্দেহ, নিজের অবচেতনে যে আত্মপ্রসাদে ডুবে থাকা মানুষটা আছে, সে ব্যাটার হয়তো ইচ্ছে হয়েছে – নিজের নামে একটা সাইট খোলা যাক। যাক গে, বলছি অন্য প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলা যায় না?

আপনার এই সৎ স্বীকারোক্তির জন্যে ধন্যবাদ। তবে জেনুইন আইডিয়া না থাকলে কেউ টেকে না।

এই যে শুনুন, আমি এখানে কোনও ধরনের টেকা না টেকার খেলা লড়তে আসি নি। আগেই বলেছি আমি কেবল আমার কথা যা বলতে ইচ্ছে করে বলে যেতে চাই। তাতে কে কি শুনল না শুনল, আমার তাতে কিছু যায় আসে না। আমি ভেবেছিলুম সাইটের নামটা থেকেই সেটা পরিস্ফুট হয়।

দোহাই, ভুল বুঝবেন না। কয়েকটা পোস্ট দেখে আমি ইমপ্রেসড ই বটে। তবে এটা বলতেই হয়, বাকি গুলোর বেশির ভাগই পাতে দেওয়ার মত না।

আমার মনে আমি এটা প্রশংসা হিসাবেই নেব। আপনি যে এদ্দুর এসে পড়েছেন তাতেই আমি বেশ অবাক। এই যে প্রশ্ন করছেন এত এত, আমার তো আপনাকে দিব্য লাগছে!

এই যে, আমি পুরুষ না মহিলা না জেনেই দেখছি ফ্লারট করা শুরু করে দিলেন। তা আসল জীবনে আপনার কি করা হয়?

আপনি বুঝি বলতে চাইছেন এটা আসল জীবনের অঙ্গ নয়? যাক গে। আমি আপাতত ফিজিক্সের পি এইচ ডি স্টুডেন্ট। তবে ওই সব ব্যাপারে এখানে বকবক করতে বিশেষ স্বচ্ছন্দ নই। এই জায়গাটা থাক না একটু অন্য রকম। আসল কাজ রইলো আসল জীবনের জন্যে পড়ে। এখানে মাঝে সাঝে আসব একটু মুক্ত শ্বাস নেব বলে। এই জায়গাটা…

আপনি কি এবার কবিত্ব ফলাতে চাইছেন?

এ বাবা। এরকম লাগলো নাকি? তাহলে খুব ব্যাথিত।

যাই হোক, আমার মনে হচ্ছে আপনার সঙ্গে কথাবার্তা বলে আমি আরই কনফিউজড।

তাহলে আমি দুঃখিত। এখানে থামাই আমার মনে হয় ভালো। আপনার ইচ্ছে হলে পরে কথাবার্তা বলা যাবে’ক্ষণ। আপাতত যে পোস্ট আপনার ভালো লেগেছে বলে মনে হচ্ছে তাতে কমেন্ট বক্সে গিয়ে আপনার মতামত প্রকাশ করলে বাধিত হব।

ওহ। মনে হয় না আমার সময় হবে অতটা। যাই হোক। আপনি চালিয়ে যান। বাই।

বেশ। বাই।

A Soliloquy
A bilingual blog in Bengali and English. © A Soliloquy